Published On: বৃহস্পতি, ডিসে. 5th, 2019

পশ্চিম মেদিনীপুরে বাড়ছে এইচআইভি আক্রান্তের সংখ্যা

Share This
Tags

মেদিনীপুরঃ বিশ্ব এইডস দিবসে যতই প্রচার সচেতনতা করা হোক না কেনও। রাজ্যের এইচআইভি আক্রান্তরা বাড়ছে লাফিয়ে লাফিয়ে ৷ কর্মসূত্রে বাইরে গিয়ে ফিরে আসা লোকজনই বেশি আক্রান্ত হয়ে ছড়াচ্ছেন নিজের গ্রাম ও শহরে ৷ এই চিত্র সব থেকে বেশি ধরা পড়েছে পশ্চিম মেদিনীপুরে ৷ পশ্চিম মেদিনীপুরের জেলা মুখ্যস্বাস্থ্য আধিকারিক ডাঃ গিরিশচন্দ্র বেরা জানিয়েছেন, জেলাতে ২০১৮ তে যেখানে এইচআইভি আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৬৫২ জন। চলতি বছরে সেই সংখ্যাটা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৫০৩ জন ৷ আরও নিখুঁত পরীক্ষা করতে রবিবার থেকে জেলাতে শুরু হল আইসিটিসি( ইন্টিগ্রেটেড কাউন্সিলিং টেস্টিং সেন্টার )৷ বাসস্ট্যান্ড,রেল ষ্টেশন এই সমস্ত স্থানেই এই ক্যাম্প করে সাধারণদের বিনামূল্যে রক্ত পরীক্ষা করে এইচাইভি সংক্রামিত কিনা দেখা হবে ৷ জেলার স্বাস্থ্য দফতর থেকে এই আয়োজন করা হয়েছে। ১ ডিসেম্বর বিশ্ব এইডস দিবস হিসেবে পালিত হচ্ছে গোটা জেলায়৷ মূলত সচেতনতা বৃদ্ধি করাই এই দিবসের লক্ষ্য৷ পশ্চিম মেদিনীপুরে জেলা স্বাস্থ্য দফতরের উদ্যোগে এদিন সকাল সাড়ে আটটা নাগাদ  এইডস নিয়ে সচেতনতা প্রচারে শোভাযাত্রা বের হয় ৷ মেদিনীপুর শহরের জেলা পরিষদ থেকে স্বাস্থ্য দফতরের কর্মী ও বিভিন্ন বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের নিয়ে এই শোভাযাত্রা বের করা হয় ৷ পরে শহরের বিদ্যাসাগর হলে একটি সচেতক সেমিনারের আয়োজন করা হয় ৷ দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, পশ্চিম মেদিনীপুরের ঘাটাল মহকুমাতে এইআইভি পজেটিভ এর সংখ্যা সব থেকে বেশি ৷ ঘাটাল দাসপুরের লোকজন কর্মসূত্রে বহিঃরাজ্যে বেশির ভাগ সময় থাকেন ৷ বাইরে থেকে সেই মারণ ভাইরাস ছাড়াচ্ছে বিভিন্ন ভাবে ৷ বাড়ছে অন্যান্য স্থানগুলিতেও ৷ ২০১৮ এর ডিসেম্বর পর্যন্ত পশ্চিম মেদিনীপুরে এই রোগে আক্রান্তের সংখ্যা ৬৫২ জন ৷ এবার সেখানে ১৫০৩ জন ৷ যার মধ্যে রয়েছে যুবকযুবতী থেকে প্রসূতি অনেকেই ৷  স্বাস্থ্য দফতরের পক্ষ থেকে জেলার মুখ্যস্বাস্থ্য আধিকারিক ডাঃ গিরিশচন্দ্র বেরা বলেন,  বেশি করে সচেতন করা হয়েছিল বলেই এত বেশি পরিমাণ শনাক্ত হওয়ার কারণ। পরীক্ষার পরিসর বাড়ানো হয়েছে ৷ এবারও জেলাজুড়ে স্টেশন, বাসস্ট্যান়্ড ১৩ টি আইসিটিসি করা হচ্ছে ৷ সেখানে বিনামূল্যে জনসাধারণের পরীক্ষা করা হবে ৷ শনাক্ত হলে গোপনে কাউন্সিলিং করা হবে ৷  

About the Author