Published On: সোম, ডিসে. 9th, 2019

রাত্রি নিবাসের সংখ্যা বাড়াচ্ছে পুরসভা

Share This
Tags

আদালতের নির্দেশ কোনও বড় শহরে ভবঘুরেদের রাস্তায় ফেলে রাখা যাবে না। তাদের জন্য তৈরী করতে হবে নাইট শেল্টার| ইতিমধ্যেই কলকাতা পুরসভার কয়েকটি রাত্রিনিবাস রয়েছে| তবে শীঘ্রই ভবঘুরে ও কাজের জন্য শহরে আগতদের রাতে থাকার সুবিধার্থে কলকাতা পুরসভা আরও বেশ কয়েকটি রাত্রিনিবাস চালু করছে। শনিবার এমনটাই জানালেন মেয়র ফিরহাদ হাকিম|

পুরভবনে আজ মেয়র জানান, “কালীঘাটে একটি রাত্রিনিবাস চালু হচ্ছে। শহরের বিভিন্ন স্থানে কয়েকটি রাত্রিনিবাস ইতিমধ্যেই তৈরি হয়ে গেছে| ইতিমধ্যেই  পুলিশকে তার তালিকা দেওয়া হয়েছে| রাস্তায় ফুটপাতে রাত কাটানো ভবঘুরেরা যাতে সেখানেই থাকে পুলিশ তার ব্যবস্থা করবে”। এর পাশাপাশি মেয়র আরও জানান, রাত্রিনিবাস তৈরির জন্য কিছু সংস্থার থেকে জমিও পাওয়া গেছে। সেখানেও নিবাস তৈরির কাজ চলছে। অন্যদিকে, ধাপায় বর্জ্য পৃথকীকরণের কাজের জন্য নিযুক্ত কর্মীদের থাকার সুবিধার্থে ধাপায় এক লক্ষ বর্গফুটের ছাউনি দিয়ে থাকার জায়গা করা হচ্ছে বলে মেয়র এদিন জানান।

আপাতত রাজ্য সরকার ও কলকাতা পুরসভার মিলিয়ে শহরে বর্তমানে মোট ৪৪ টি রাত্রিনিবাস রয়েছে। এরমধ্যে প্রায় ৭ টি রাত্রিনিবাস রয়েছে পুরসভার| পুরসভা সূত্রের খবর, ২০১১ সালের জনসমীক্ষা অনুযায়ী শহরে গৃহহীন মানুষের সংখ্যা ছিল ৭০ হাজার। যদিও এখন সংখ্যা কত, তা স্পষ্ট নয়। অথচ শহরে নাইট শেল্টার রয়েছে মাত্র ৪৪টি। যাতে থাকতে পারে মাত্র পাঁচ হাজার থেকে সামান্য বেশি কিছু মানুষের। অর্থাৎ, নাইট শেল্টার বাড়ানোর প্রয়োজন যে রয়েছে, সেটা পরিসংখ্যান থেকেই স্পষ্ট। এর মধ্যে কলকাতা পুরসভার নাইট শেল্টারগুলি রয়েছে চেতলা ঘাট, নর্দার্ন পার্ক, গৌরীবাড়ি, গ্যালিফ স্ট্রিট ও রাজা মণীন্দ্র রোডে। বাকি নাইট শেল্টারগুলি তৈরি করেছে সমাজকল্যাণ দফতর। সেগুলি দেখভালের দায়িত্ব স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার হাতে রয়েছে।

About the Author