এবার ভারতেও অক্সফোর্ডের টিকার তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল ফের শুরু করার অনুমতি পেল সেরাম।

Share This
Tags

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ একজন স্চ্ছোসেবক অসুস্থ হয়ে পড়ার খবর প্রকাশ্যে আসতেই অক্সফোর্ডের টিকার ট্রায়াল সাময়িক ভাবে বন্ধ রেখেছিল অ্যাস্ট্রোজেনেকা। তবে ফের ব্রিট্রেনে নতুন করে ট্রায়াল শুরু হয়। এখন শুধু ব্রিটেনই নয়, এবার ভারতেও অক্সফোর্ডের টিকার ট্রায়াল ফের শুরু করতে পারবে সেরাম ইনস্টিটিউট। অনুমতি দিলেন ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেল ভি জি সোমানি।
ইতিমধ্যে ব্রিটেনের মেডিসিনস হেলথ রেগুলেটরি অথরিটির অনুমতি পেয়ে টিকার ট্রায়াল ফের শুরু করে দিয়েছে ব্রিটিশ-সুইডিশ ফার্ম অ্যাস্ট্রজেনেকা। অক্সফোর্ডের টিকা সুরক্ষিত বলেই ঘোষণা করা হয়েছে। টিকার ডোজে যে মহিলা স্বেচ্ছাসেবকের স্নায়ুর রোগ দেখা গিয়েছিল বলে জানায় অ্যাস্ট্রজেনেকা, তিনিও নাকি এখন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। কাজেই চিন্তার আর কোনও কারণ নেই বলেই জানিয়েছে এই ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি। ব্রিটেনের পরে ভারতেও ফের টিকার ট্রায়াল শুরু হবে কিনা সেই নিয়ে এতদিন টানাপড়েন চলছিল। সেরামের সিইও আদর পুনাওয়ালা অনেকবারই বলেছেন, অক্সফোর্ডের ফর্মুলায় তৈরি তাদের কোভিশিল্ড টিকা একেবারেই নিরাপদ ও সুরক্ষিত। ১০০ জনকে টিকার ইঞ্জেকশন দিয়েও জটিল রোগ দেখা যায়নি। তবে দেশের ড্রাগ কন্ট্রোল যা বলবে সেই মতোই কাজ করা হবে। নির্দেশিকা কোনওভাবেই অমান্য করা হবে না। এবার ড্রাগ কন্ট্রোলের অনুমতি পাওয়ায় সেই চিন্তা থেকেই মুক্ত হল সেরাম। ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেল ভি জি সোমানি জানিয়েছেন, সেরামের টিকার ক্লিনিকাল ও সেফটি ট্রায়ালের রিপোর্ট খুঁটিয়ে দেখে তবেই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ভ্যাকসিন রেগুলেটরি কমিটির বিশেষজ্ঞরা। এই টিকার ডোজে কোনওরকম ‘অ্যাডভার্স সাইড এফেক্টস’ হচ্ছে কিনা সেটা ভালভাবে দেখে, বুঝে তবেই টিকার ট্রায়াল ফের শুরু করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে।
অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির ভেক্টর ভ্যাকসিনের ফর্মুলায় ভারতে টিকা তৈরি লাইসেন্স পেয়েছিল সেরাম। ব্রিটিশ-সুইডিশ ফার্ম অ্যাস্ট্রজেনেকার সঙ্গে চুক্তি করে কোভিশিল্ড টিকা তৈরি করে দেশের প্রথম সারির এই ভ্যাকসিন নির্মাতা সংস্থা। কিন্তু অ্যাস্ট্রজেনেকা সম্প্রতি টিকার ট্রায়াল বন্ধ করে দেওয়ায় প্রভাব পড়ে ভারতেও। ব্রিটেনের ঘটনার উল্লেখ করে সেরামকে পাঠানো নোটিশে ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেল ভি জি সোমানি জানতে চান, নিরাপত্তার কারণে যেখানে টিকার ট্রায়াল বন্ধ করে দিয়েছে অ্যাস্ট্রজেনেকা সেখানে কীভাবে এখনও টিকার পরীক্ষামূলক প্রয়োগ চালিয়ে যাচ্ছে সেরাম। সোমানি আরও জানতে চেয়েছিলেন, অক্সফোর্ডের টিকার প্রভাবে ব্রিটেনের স্বেচ্ছাসেবকদের শরীরে কী ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা গেছে তার বিস্তারিত রিপোর্ট কেন জমা করেনি সেরাম। অক্সফোর্ডের টিকায় কী গলদ দেখা গেছে সে নিয়েও সেরাম কিছু জানায়নি। যতক্ষণ না সুরক্ষার ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়া যাচ্ছে ততক্ষণ টিকার পরীক্ষামূলক প্রয়োগ নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে।

About the Author