কমলা হ্যারিসের জয়ের জন্য প্রার্থনায় বিভোর তামিলনাড়ু।

Share This
Tags

মার্কিন মুলুকে মহারণ। আগামী ৪ বছর হোয়াটস হাউস কার দখলে থাকবে? তা নির্ধারণ করতেই এই ভোটগ্রহণ। এদিকে ঘরের মেয়ে নির্বাচনে লড়ছে। হোক না সে বিদেশ। তবু তাঁর জয় প্রার্থনা করে মন্দিরে ভিড় জমিয়েছেন তামিলনাড়ুর গ্রামের বাসিন্দারা।
মঙ্গলবার সকাল থেকেই গ্রামের মন্দিরে বিশেষ পুজো, যাগ-যজ্ঞ। কারণ ঘরের মেয়ে এবার মার্কিল মুলুকে লড়াই করছে। তাই সে দেশের ভোটের ফলাফলের দিকে তাকিয়ে আছে তামিলনাড়ুর থিরুভারু জেলার পাইগানাডু গ্রাম। কারণ, এই গ্রামের আদরের ‘নাতনি’ বিডেন ক্যাম্পের ভাইস প্রেসিডেন্ট পদের জন্য লড়ছেন।ডেমোক্রাট শিবিরের ভাইস প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী কমলা হ্যারিসের দাদু ও পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা এই পাইগানাডু গ্রামের বাসিন্দা। কমলা হ্যারিসও এই গ্রামে এসেছেন কয়েকবার। পরে তাঁর দাদু গ্রাম ছেড়ে চলে যান। তবু মন্দির ও গ্রামবাসীদের সঙ্গে যোগাযোগ থেকে যায়। মন্দিরের সংস্কারের জন্য বহু অনুদান দিয়েছেন তাঁর পরিবার। ২০১৪ সালেও কমলা হ্যারিসের নামে অনুদান দেওয়া হয়।
মঙ্গলবার সকাল থেকেই ধর্মশাস্ত্র মন্দিরে ভিড়। আয়োজন করা হয় বিশেষ পুজোর। কারণ গ্রামের মেয়ে কমলা হ্যারিস ভোটে দাঁড়িয়েছেন। তাঁর জয় কামনা করে চারিদিকে পোস্টার ব্যানার পড়ে। তবে এই প্রথম না। ২০১০ সালে কমলা হ্যারিস ক্যার্লিফোর্ণিয়ার অ্যাটর্নি জেনারেল পদের জন্য যখন লড়েছেন তখনও চেন্নাইয়ের মন্দিরে ১০৮ নারকেল ফাটানো হয়েছিল। সেবার তিনি জয়ও পেয়েছিলেন। এবার জয় পান কীনা, তা জানতে আর কিছু সময়ের অপেক্ষা।

About the Author